মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

সাম্প্রতিক কর্মকান্ড

  • খুলনা ওয়াসার আওতায় এডিবি ও জাইকার আর্থিক সহায়তায় “খুলনা পানি সরবরাহ” শীর্ষক মেগা প্রকল্পটি ২০১১ সালে প্রাক্কলিত ব্যয় ২৫৫৮ কোটি টাকায় একনেক কর্তৃক অনুমোদন হয়। প্রকল্পের প্রথম পর্যায়ে মোট ১২ টি স্থানে প্রায় ৭২ একর জমি অধিগ্রহণের জন্য প্রায় আড়াই বছর লেগে গেছে। তাই মাঠ পর্যায়ের বাস্তব নির্মাণ / স্থাপন কাজ শেষ করার জন্য প্রকল্পের মেয়াদ বৃদ্ধি করার প্রয়োজন হয়েছে। কিন্তু প্রকল্প বাস্তবায়নকাল ৭ বৎসরের মধ্যে প্রকল্পের ব্যয় একটি টাকাও বৃদ্ধি করা হয়নি, ডিসেম্বর ২০১৮ এর মধ্যে যার শতভাগ কাজ শেষ হবে। এই প্রকল্পের আওতায় উল্লেখযোগ্য কর্মকান্ডসমূহ হচ্ছে- (১) মোল্লাহাটে মধুমতি নদী থেকে পানি সংগ্রহ করে ৩৩ কিঃমিঃ ৫৬ ইঞ্চি ব্যাসের পাইপের মাধ্যমে সামন্তসেনায় ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট-এ আনা; (২) দৈনিক ১১ কোটি লিটার ক্ষমতার ওয়াটার ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট ও ৭৭.৮ কোটি লিটার ক্ষমতার রিজার্ভার নির্মাণ; (৩) ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট থেকে পরিশোধিত পানি খুলনা শহরে আনার জন্য ৪৪ কিঃমিঃ ডাক্টাইল আয়রন পাইপ, ১৪ কিঃমিঃ এইচডিপিই পাইপ ও রূপসা নদীর তলদেশে প্রায় ৫০ফুট নীচ দিয়ে পাইপ লাইন স্থাপন করা; (৪) খুলনা শহরের বিভিন্ন স্থানে ৭টি ডিস্ট্রিবিউশন রিজার্ভার ও ১০টি ওভারহেড ট্যাংক নির্মাণ করা; (৫) খুলনা শহরের সকল বাসগৃহে সুপেয় পানি সরবরাহের জন্য প্রায় সকল রাস্তায় ৬৫০ কিঃমিঃ পাইপ লাইন স্থাপন এবং ৪৫ হাজার হোল্ডিং-এ মিটারসহ পানির সংযোগ প্রদান।
           -প্রকল্পের কাজ সার্বিকভাবে প্রায় ৯০% শেষ হয়েছে। ডিসেম্বর ২০১৮ এর মধ্যে ৪৫ হাজার হোল্ডিং-এ পানির সংযোগ প্রদান করে দৈনিক ১১ কোটি লিটার সুপেয় পানি সরবরাহ করে খুলনাবাসীর দীর্ঘদিইনের প্রত্যাশা পূরণ করতে যাচ্ছে খুলনা ওয়াসা।
  • খুলনা শহরে পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থা না থাকায় মানব বর্জ্যসহ সকল ধরনের বর্জ্য পানি নিকটবর্তী নর্দমায় অথবা নদীতে প্রবাহিত হচ্ছে বিধায় পরিবেশ দূষণ হচ্ছে এবং জনস্বাস্থ্য মারাত্মক হুমকীর সম্মুখীন হচ্ছে। খুলনা শহরকে একটি পরিবেশবান্ধব পরিচ্ছন্ন শহর হিসাবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে খুলনা ওয়াসার পক্ষ থেকে মানব বর্জ্যসহ সকল বর্জ্য পানি পাইপ লাইনের মাধ্যমে সংগ্রহ করে পাম্পিং স্টেশনের মাধ্যমে ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট-এ নিয়ে এসে পরিশোধনের লক্ষ্যে “খুলনা শহরের জন্য পয়ঃনিষ্কাশন ব্যবস্থার উন্নয়ন” শীর্ষক একটি মেগা প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। এই প্রকল্পটি এডিবি’র আর্থিক সহযোগীতায় বাস্তবায়ন করা হবে। আলোচ্য প্রকল্পটি বাস্তবায়নের উদ্দেশ্যে প্রয়োজনীয় জমি অধিগ্রহণের জন্য ডিপিপি ইতোমধ্যে একনেক কর্তৃক অনুমোদিত হয়েছে। আলোচ্য মেগা প্রকল্পটি বাস্তবায়নের জন্য প্রায় ১৩০০ কোটি টাকা ব্যয় হবে।

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter